ব্যাগ ও ফ্যাশন

ব্যাগ ও ফ্যাশন

 

হ্যান্ডব্যাগ নারীর প্রয়োজনীয় ফ্যাশনেবল অনুসঙ্গ। ফ্যাশনে ও পার্টিতে হ্যান্ড ব্যাগের চাহিদা ব্যাপক। নিত্যনতুন ডিজাইনের হ্যান্ড ব্যাগের ব্যবহার শুধু সুপার মডেল, সেলিব্রিটি, ফটোশুট ও ক্যাটওয়াকের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই। নারীদের নিত্যপ্রয়োজনীয় অ্যাকসেসরিস হিসেবে হ্যান্ড ব্যাগের বিকল্প নেই বললেই চলে। নানাধরনের পার্টি, ফ্যাশন শো অথবা বেড়ানোর জন্য পোশাকের পরই হ্যান্ড ব্যাগের স্থান। হ্যান্ডব্যাগের মানানসই ব্যাপারটি নিয়ে বর্তমানে নারীরা এতো সজাগ যে, এর জন্য পর্যাপ্ত সময় ও অর্থ ব্যায় করে পছন্দসই ব্যাগটি সংগ্রহ করতে দ্বিধাবোধ করেন না। নারীর হ্যান্ড ব্যাগ নারীর বর্তমান সময়কে স্বপ্নময় করে তুলছে। ফ্যাশনের অনুষঙ্গ হিসেবে হ্যান্ডব্যাগের কদর থাকলেও স্থান বা বয়সের তারতম্যে এর বিভিন্নতা রয়েছে। হ্যান্ড ব্যাগ ব্যাবহার বা বহন করার ব্যাপারে নিজস্ব রুচি বা বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী পরিবেশভেদে মনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ভালো জিনিসটিই ব্যবহার করা উচিত। আসলে উপযোগী ও মানানসই হাতের ব্যাগটি শরীর ও মনের প্রশান্তি বহুগুণ বাড়িয়ে দিতে পারে। ব্যাগ পছন্দের ক্ষেত্রে নারীদের অনেক সচেতন হওয়ার প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ কিছু কারণ রয়েছে। তা হলো- হ্যান্ডব্যাগ অনেক ক্ষেত্রে এটি নারীর সামাজিক অবস্থান নির্দেশ করে। তারা কতোটা ফ্যাশন সচেতন ও রুচিবান তা অনুমান করা যায়। তাদের সোস্যাল স্টাটাসের ইঙ্গিত করে।


শতবর্ষ আগে নারীরা বাইরে কর্মক্ষেত্রের সঙ্গে খুব একটা জড়িত ছিলেন না। তখন তারা প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ‘পার্স’-এ রাখতেন। আর আমাদের উপমহাদেশের সব নারীরা কাপড়ে বেঁধে রাখতেন। আর এখন দিন বদলেছে এখন গ্রামের নারীরাও বাহারী হ্যান্ডব্যাগ ব্যবহার করেন। প্রথম ষোড়শ শতকের দিকে বিলেতে বহনযোগ্য ব্যাগের ব্যবহার শুরু হয়। তখন বিভিন্ন মুদ্রা আলাদা করে রাখতে ছোট ছোট ব্যাগ ব্যবহার করা হতো। এরপর অষ্টাদশ ও উনবিংশ শতকের দিকে হাতে ব্যাগ বহন আধুনিকতার প্রতীক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়।


সারা বিশ্বের তরুণী ও বয়স্কদের মধ্যে ব্যাগ পছন্দের ক্ষেত্রে তারতম্য দেখা যায়। মধ্যবয়স্ক নারীরা লেদার, আর্টিফিশিয়াল লেদার ও বিভিন্ন কাপড়ের তৈরি অতি সাধারণ কিন্তু মানসম্পন্ন ব্যাগ বেছে নেন। তরুণীরা গর্জিয়াস অ্যাপলিং টাইপের ব্যাগ পছন্দ করেন। মিটিং, পার্টি, অনুষ্ঠানসহ অনেক ক্ষেত্রে ব্যাগ ছাড়া আপনার কাছেই নিজেকে বেমানান মনে হবে। সাজ-গোজ ও পোশাকের সঙ্গে নিজের রুচি অনুযায়ী ব্যাগের কম্বিনেশন করে নিতে হয়। আবার জুতোর সঙ্গেও মিল থাকা চাই ব্যাগ কিংবা পোশাকে। আবার এগুলোর কোনো একটি রঙ থাকতে পারে ব্যাগে- এমন পরামর্শ এখন হয়তো আর পাবেন না ফ্যাশন বিশেষজ্ঞদের কাছ থেকে। বর্তমানে ব্যবহারে আরামদায়ক ও নিজের সঙ্গে মানানসই ব্যাগের প্রতি আগ্রহ বাড়ছে ক্রেতাদের। বাজারে চামড়া, কাপড়, পাটসহ বিভিন্ন উপাদানের ছোট, বড় ও মাঝারি আকারের ব্যাগ পাওয়া যাচ্ছে। এর পাশাপাশি পার্টি ব্যাগ ও বটুয়ার জনপ্রিয়তাও অনেক। অনুষ্ঠানে শাড়ি পরলে সঙ্গে মানিয়ে ছোট আকারের ব্যাগ, ক্লাচ বা বটুয়া নিলে দেখতে ফ্যাশনেবল দেখায়। আর এখন তো বাজারে বিভিন্ন রঙের ব্যাগ পাওয়া যায়। তাই পছন্দসই আকারের বিভিন্ন রঙের ব্যাগ নিজের কালেকশনে রাখতে ভালোই

লাগে। বিভিন্ন উৎসব ও অনুষ্ঠানে একটু বড় আকারের পার্টি ব্যাগ ও ক্লাচ বেশ জনপ্রিয়। দেশের বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে এখন ফ্যাশনেবল পোশাকের পাশাপাশি ক্রেতার চাহিদার দিকে লক্ষ্য রেখে মানানসই ব্যাগও রাখা হয়। চামড়ার ওপর পাথরের নকশা ও মখমলের কাজ করা হয় পার্টি ব্যাগে। এছাড়া হাতে এমব্রয়ডারি করা পুঁতি বসানো, কাপড়ের ওপর পুঁতির কাজ করা, শীতল পাটি, পাট ও জুয়েলারি স্টোনের পার্টি ক্লাচও পাওয়া যায়। শাড়ি, স্কার্ট বা লেহেঙ্গার সঙ্গে সহজেই মানিয়ে যায় বটুয়া। কাপড়ের ওপর লেইস বসানো বা ভেলভেটের বটুয়া পাওয়া যাবে যে কোনো বুটিকে।
প্রয়োজনের চেয়ে যেন ইদানীং ফ্যাশন বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এ যেন আভিজাত্য ও স্টেটাস সিম্বল। বর্তমানে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ব্যাগের ফ্যাশন। ছেলে ও মেয়ে-উভয়ের ফ্যাশনে পোশাকের সঙ্গে ম্যাচ করে মানানসই বাহারি রঙের বিচিত্র নকশার ছোট-বড় ব্যাগ অন্যতম অনুষঙ্গে পরিণত হয়েছে। তাই অনেকেই যে কোনো পরিবেশে একটি ফ্যাশনেবল ব্যাগ ছাড়া নিজেকে অসম্পূর্ণ মনে করেন।
বর্তমানে ব্যবহারে আরামদায়ক ও নিজের সঙ্গে মানানসই ব্যাগের প্রতি আগ্রহ বাড়ছে ক্রেতাদের। বাজারে চামড়া, কাপড়, পাটসহ বিভিন্ন উপাদানের ছোট, বড় ও মাঝারি আকারের ব্যাগ পাওয়া যাচ্ছে। এর পাশাপাশি পার্টি ব্যাগ ও বটুয়ার জনপ্রিয়তাও অনেক।


অনুষ্ঠানে শাড়ি পরলে সঙ্গে মানিয়ে ছোট আকারের ব্যাগ, ক্লাচ বা বটুয়া নিলে দেখতে ফ্যাশনেবল দেখায়। আর এখন তো বাজারে বিভিন্ন রঙের ব্যাগ পাওয়া যায়। তাই পছন্দসই আকারের বিভিন্ন রঙের ব্যাগ নিজের কালেকশনে রাখতে ভালোই লাগে।
বিভিন্ন উৎসব ও অনুষ্ঠানে একটু বড় আকারের পার্টি ব্যাগ ও ক্লাচ বেশ জনপ্রিয়। দেশের বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে এখন ফ্যাশনেবল পোশাকের পাশাপাশি ক্রেতার চাহিদার দিকে লক্ষ্য রেখে মানানসই ব্যাগও রাখা হয়। চামড়ার ওপর পাথরের নকশা ও মখমলের কাজ করা হয় পার্টি ব্যাগে। পার্স পাওয়া যায় পার্টি কিংবা ক্যাজুয়ালে। শাড়ি কিংবা জমকালো কামিজের সঙ্গে হাতে ম্যাচ করা ঝলমলে পার্স না থাকলেই নয়।
বক্স ব্যাগ এটি শক্ত বক্স আকারের। ছোট-বড় সবই আছে। ছোট হাতল থাকে। কালো রঙের ব্যাগের ওপর থাকে সোনালি কাজ করা। এছাড়া চকলেট, বাদামি রঙগুলো বেশি চলে। আবার এখন ওপরে রাবারের মতো নতুন নকশার কিছু ব্যাগ পাওয়া যায়। সামনে থাকে লক সিস্টেম চারকোণা গড়নের।

ক্লাচ ব্যাগ ফ্যাশনে সব সময় এগিয়ে ক্লাচ ব্যাগ। চারকোণা, ডিম্বাকৃতি, গোলাকৃতি, পানপাতা, তিনকোণা, কাঠের হাতলসহ বাজারে রয়েছে নানান আকারের ক্লাচ ব্যাগ। এ ব্যাগগুলো হয় ডুয়েট স্টাইলের। হাতে নেয়া ছাড়াও সরু চেইন দিয়ে কাঁধেও ঝোলানো যায়। নকশাও নজরকাড়া। কোনো ব্যাগের শরীর ঢাকা নরম পালকে, কোনোটিতে মেটাল বা লেদার আবার কোনোটি শার্টিনের কাপড়ের নকশাদার আবরণ। তবে এখন বেশ জনপ্রিয় ছোট্ট বাক্সের মতো দেখতে ক্লাচ ব্যাগ ও চৌকো আকৃতির লেদার স্লিম ব্যাগ।

প্রয়োজনের চেয়ে যেন ইদানীং ফ্যাশন বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এ যেন আভিজাত্য ও স্টেটাস সিম্বল। বর্তমানে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ব্যাগের ফ্যাশন। ছেলে ও মেয়ে-উভয়ের ফ্যাশনে পোশাকের সঙ্গে ম্যাচ করে মানানসই বাহারি রঙের বিচিত্র নকশার ছোট-বড় ব্যাগ অন্যতম অনুষঙ্গে পরিণত হয়েছে। তাই অনেকেই যে কোনো পরিবেশে একটি ফ্যাশনেবল ব্যাগ ছাড়া নিজেকে অসম্পূর্ণ মনে করেন।

 

লেখা : সহজ ডেস্ক
মডেল : নুসরাত শ্রাবণী
ব্যাগ ও আয়োজন : সিয়াকা
ছবি : ফারহান ফয়সাল

Read 41 times

About Us

Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipisicing elit, sed do eiusmod tempor incididunt ut labore et dolore magna aliqua.

Duis aute irure dolor in reprehenderit in voluptate velit esse cillum dolore eu fugiat nulla pariatur.

Read More

We use cookies to improve our website. By continuing to use this website, you are giving consent to cookies being used. More details…